বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হঠাৎ ল্যাপটপ বন্ধ হয়ে গেলে কী করবেন?

ছবি-সংগৃহীত

প্রতিদিন বিভিন্ন ডিভাইস ব্যবহার করা হয়, এর মধ্যে অন্যতম ল্যাপটপ। সহজে যেকোনো স্থানে বহন করা যায় বলে ল্যাপটপ ব্যাপক জনপ্রিয়। তবে অনেক সময় দেখা যায় জরুরি মুহূর্তে ল্যাপটপ হ্যাং করে। কোনো সময় বন্ধও হয়ে যায়। এমন সব পরিস্থিতিতে এড়িয়ে যেতে চাইলে কিছু কৌশল অনুসরণ করতে হবে। মার্কিন প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েব সাইট পিসি ম্যাকে উঠে এসেছে এমন কিছু উপায়।

১.পাওয়ার সেভার মোড অন করতে হবে। এটা অন করলে ব্যাটারি বাঁচানোর জন্য নির্দিষ্ট কিছু ফিচার স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যায়। যেসব জায়গায় ব্যাটারি চার্জ দেয়ার সুবিধা নেই সেখানে এ ফিচার বেশ সহায়ক।

২. ডিসপ্লের ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখা। স্ক্রিনের ব্রাইটনেস ব্যাটারির ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে। তাই ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখতে হবে।

৩. ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথ বন্ধ রাখতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া এ দুই কানেক্টিভিটি অপশন চালু থাকলে তা অতিরিক্ত মাত্রায় ব্যাটারির ওপর চাপ তৈরি করবে।

৪. অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ বন্ধ রাখতে হবে। সবসময় সব অ্যাপের প্রয়োজন পড়ে না। কিন্তু তার পরও চালু থাকে। এতে ব্যাটারি খরচ হয় বেশি। তাই অ্যাপ ব্যবহার না করলে সেগুলো বন্ধ রাখাই ভালো।

৫. ব্যাকগ্রাউন্ড প্রসেস বন্ধ রাখতে হবে। ইউজার ব্যবহার না করলেও কিছু অ্যাপ্লিকেশন ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতেই থাকে, যা ব্যাটারির ওপর চাপ ফেলে এবং দ্রুত চার্জ শেষ হয়ে যায়।

৬. ল্যাপটপের হাই পারফরম্যান্স মোড বন্ধ করতে হবে। অনেক ল্যাপটপে অডিও বা ভিডিও চালাতে সমস্যা হয়। পারফরম্যান্স খারাপ থাকে। এক্ষেত্রে হাই পারফরম্যান্স মোড ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়। কিন্তু এতে ব্যাটারি খরচ হয় বেশি। তাই ব্যাটারি কম থাকলে হাই পারফরম্যান্স মোড বন্ধ রাখাই ভালো।

হঠাৎ ল্যাপটপ বন্ধ হয়ে গেলে কী করবেন?

প্রকাশের সময় : ০১:০৩:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

প্রতিদিন বিভিন্ন ডিভাইস ব্যবহার করা হয়, এর মধ্যে অন্যতম ল্যাপটপ। সহজে যেকোনো স্থানে বহন করা যায় বলে ল্যাপটপ ব্যাপক জনপ্রিয়। তবে অনেক সময় দেখা যায় জরুরি মুহূর্তে ল্যাপটপ হ্যাং করে। কোনো সময় বন্ধও হয়ে যায়। এমন সব পরিস্থিতিতে এড়িয়ে যেতে চাইলে কিছু কৌশল অনুসরণ করতে হবে। মার্কিন প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েব সাইট পিসি ম্যাকে উঠে এসেছে এমন কিছু উপায়।

১.পাওয়ার সেভার মোড অন করতে হবে। এটা অন করলে ব্যাটারি বাঁচানোর জন্য নির্দিষ্ট কিছু ফিচার স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যায়। যেসব জায়গায় ব্যাটারি চার্জ দেয়ার সুবিধা নেই সেখানে এ ফিচার বেশ সহায়ক।

২. ডিসপ্লের ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখা। স্ক্রিনের ব্রাইটনেস ব্যাটারির ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে। তাই ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখতে হবে।

৩. ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথ বন্ধ রাখতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া এ দুই কানেক্টিভিটি অপশন চালু থাকলে তা অতিরিক্ত মাত্রায় ব্যাটারির ওপর চাপ তৈরি করবে।

৪. অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ বন্ধ রাখতে হবে। সবসময় সব অ্যাপের প্রয়োজন পড়ে না। কিন্তু তার পরও চালু থাকে। এতে ব্যাটারি খরচ হয় বেশি। তাই অ্যাপ ব্যবহার না করলে সেগুলো বন্ধ রাখাই ভালো।

৫. ব্যাকগ্রাউন্ড প্রসেস বন্ধ রাখতে হবে। ইউজার ব্যবহার না করলেও কিছু অ্যাপ্লিকেশন ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতেই থাকে, যা ব্যাটারির ওপর চাপ ফেলে এবং দ্রুত চার্জ শেষ হয়ে যায়।

৬. ল্যাপটপের হাই পারফরম্যান্স মোড বন্ধ করতে হবে। অনেক ল্যাপটপে অডিও বা ভিডিও চালাতে সমস্যা হয়। পারফরম্যান্স খারাপ থাকে। এক্ষেত্রে হাই পারফরম্যান্স মোড ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়। কিন্তু এতে ব্যাটারি খরচ হয় বেশি। তাই ব্যাটারি কম থাকলে হাই পারফরম্যান্স মোড বন্ধ রাখাই ভালো।