বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ব্লাড প্রেশার, স্থূলতা ‘বিট’ করতে অত্যন্ত কার্যকরী এই সবজি!

সারা দেশে এখন শীত জাঁকিয়ে পড়েছে। শীত বাড়ার সঙ্গে বাজারে নানা শীতের সবজি আসতে শুরু করেছে। এদের মধ্যে অত্যন্ত হল বিটরুট, বাজারে প্রতি কেজি বিটরুট পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৬০ টাকায়। ত্বকের রঙ উজ্জ্বল করতে বা ওজন কমাতে বিটরুট খুবই উপকারী।

অনেকেই এর জুস খেতে পছন্দ করেন, আবার অনেকে এটি স্যালাডে খেয়ে থাকেন। তবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে, উভয় ভাবেই এটি শরীরের জন্য খুব উপকারী। আসলে বিটরুটে আয়রন, সোডিয়াম, পটাসিয়াম এবং ফসফরাস পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে যা শরীরকে সুস্থ রাখতে নানা ভাবে সাহায্য করে। এটি হজমের ক্ষমতা বাড়াতেও সমান ভাবে কার্যকরী।

এই কারণেই চিকিৎসকরা সর্বদা বিটরুট খাওয়ার পরামর্শ দেন। বিশেষ করে যাঁরা শরীরচর্চা করেন তাঁদের জন্য বিটরুট খুব উপকারী। অনেকে বিটরুটের জুস পান করে ব্যায়াম করেন যা তাঁদের স্ট্যামিনা বাড়ায়।

স্ট্যামিনা বাড়ানোর পাশাপাশি বিটরুট আমাদের হার্ট সংক্রান্ত রোগ থেকেও মুক্তি দেয়। এতে প্রচুর পরিমাণে ফোলেট অর্থাৎ ভিটামিন বি ৯ রয়েছে যা রক্তনালীগুলির ক্ষত নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে এবং এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে নাইট্রিক অক্সাইড রয়েছে, যা আমাদের মাংসপেশিকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে।

বিটরুট আমাদের দেহের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এবং হিমোগ্লোবিন বাড়াতে খুবই সহায়ক। গৌচরের ডা. রজত আমাদের জানিয়েছেন যে, যখন মহিলারা হিমোগ্লোবিনের ঘাটতিতে ভোগেন বা যাঁদের ব্লাড প্রেশার বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, ডাক্তাররা তাঁদের বিটরুট খাওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি আরও বলেন যে এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী করে, যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দেয়।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্যও বিটরুট খুবই উপকারী। কারণ এতে ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসহ অনেক উপাদান রয়েছে যা ত্বকের ব্রণ, শুষ্কতা ইত্যাদি দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সহায়ক এবং এটি আমাদের মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করে।

মৌলভীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার শিশু মিনহাজ বাদ পড়েনি 

ব্লাড প্রেশার, স্থূলতা ‘বিট’ করতে অত্যন্ত কার্যকরী এই সবজি!

প্রকাশের সময় : ১০:০৪:১৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৪

সারা দেশে এখন শীত জাঁকিয়ে পড়েছে। শীত বাড়ার সঙ্গে বাজারে নানা শীতের সবজি আসতে শুরু করেছে। এদের মধ্যে অত্যন্ত হল বিটরুট, বাজারে প্রতি কেজি বিটরুট পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৬০ টাকায়। ত্বকের রঙ উজ্জ্বল করতে বা ওজন কমাতে বিটরুট খুবই উপকারী।

অনেকেই এর জুস খেতে পছন্দ করেন, আবার অনেকে এটি স্যালাডে খেয়ে থাকেন। তবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে, উভয় ভাবেই এটি শরীরের জন্য খুব উপকারী। আসলে বিটরুটে আয়রন, সোডিয়াম, পটাসিয়াম এবং ফসফরাস পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে যা শরীরকে সুস্থ রাখতে নানা ভাবে সাহায্য করে। এটি হজমের ক্ষমতা বাড়াতেও সমান ভাবে কার্যকরী।

এই কারণেই চিকিৎসকরা সর্বদা বিটরুট খাওয়ার পরামর্শ দেন। বিশেষ করে যাঁরা শরীরচর্চা করেন তাঁদের জন্য বিটরুট খুব উপকারী। অনেকে বিটরুটের জুস পান করে ব্যায়াম করেন যা তাঁদের স্ট্যামিনা বাড়ায়।

স্ট্যামিনা বাড়ানোর পাশাপাশি বিটরুট আমাদের হার্ট সংক্রান্ত রোগ থেকেও মুক্তি দেয়। এতে প্রচুর পরিমাণে ফোলেট অর্থাৎ ভিটামিন বি ৯ রয়েছে যা রক্তনালীগুলির ক্ষত নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে এবং এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে নাইট্রিক অক্সাইড রয়েছে, যা আমাদের মাংসপেশিকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে।

বিটরুট আমাদের দেহের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এবং হিমোগ্লোবিন বাড়াতে খুবই সহায়ক। গৌচরের ডা. রজত আমাদের জানিয়েছেন যে, যখন মহিলারা হিমোগ্লোবিনের ঘাটতিতে ভোগেন বা যাঁদের ব্লাড প্রেশার বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, ডাক্তাররা তাঁদের বিটরুট খাওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি আরও বলেন যে এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী করে, যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দেয়।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্যও বিটরুট খুবই উপকারী। কারণ এতে ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসহ অনেক উপাদান রয়েছে যা ত্বকের ব্রণ, শুষ্কতা ইত্যাদি দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সহায়ক এবং এটি আমাদের মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করে।