বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে দেশকে বাঁচান-কেজরিওয়াল 

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মুক্তি পাওয়ার পর প্রথম প্রকাশ্য বক্তব্যে ভোটারদের ‘একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে দেশকে বাঁচানোর’ আহ্বান জানিয়েছেন।

আশা করা হচ্ছে কেজরিওয়াল অন্তর্বর্তী জামিন পাওয়ার এক দিন পরই অর্থাৎ শনিবার নির্বাচনী প্রচারের জন্য মাঠে নামবেন।

চলতি লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে কেজরিওয়ালকে ১ জুন পর্যন্ত জামিন দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য গঠিত ভারতীয় জোটের অন্যতম প্রধান নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

শুক্রবার (১০ মে) সন্ধ্যায় তিহার জেল থেকে বেরোনোর সময় আম আদমি পার্টির প্রধানকে ১ হাজারের বেশি উচ্ছ্বসিত সমর্থক স্বাগত জানিয়েছে। সমবেত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এ দেশকে একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে বাঁচাতে হবে। আমি আমার সর্বশক্তি দিয়ে এর বিরুদ্ধে লড়াই করছি।’

শনিবার তিনি দিল্লির কনট প্লেসের হনুমান মন্দিরে যাবেন। বিকালে দিল্লিতে আম আদমি পার্টির দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করার কথা তার।

১৩ মে চতুর্থ দফার ভোট হওয়ার কথা থাকলেও দেশব্যাপী নির্বাচনী প্রচারে কেজরিওয়ালকে তুলে ধরবে দলটি। ২৫ মে নয়াদিল্লির সাতটি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ হবে।

কেজরিওয়ালের মুক্তির খবর ছড়িয়ে পড়তেই ভারতীয় ব্লকের দলগুলোতে উল্লাসের ঢেউ বয়ে যায়। এএপি এ ঘটনাকে ‘সত্যের জয়’ বলে অভিহিত করে।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তার মুক্তিকে ছোট করে দেখার চেষ্টা করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘এটা কোনো নিয়মিত জামিন নয়। এটা অন্তর্বর্তীকালীন জামিন। উনি প্রচার করতে পারেন। কিন্তু যতবার তিনি প্রচারে যাবেন, ততবারই মানুষের মনে পড়বে তার আবগারি কেলেঙ্কারির কথা।’

একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে দেশকে বাঁচান-কেজরিওয়াল 

প্রকাশের সময় : ০২:৫৮:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মুক্তি পাওয়ার পর প্রথম প্রকাশ্য বক্তব্যে ভোটারদের ‘একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে দেশকে বাঁচানোর’ আহ্বান জানিয়েছেন।

আশা করা হচ্ছে কেজরিওয়াল অন্তর্বর্তী জামিন পাওয়ার এক দিন পরই অর্থাৎ শনিবার নির্বাচনী প্রচারের জন্য মাঠে নামবেন।

চলতি লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে কেজরিওয়ালকে ১ জুন পর্যন্ত জামিন দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য গঠিত ভারতীয় জোটের অন্যতম প্রধান নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

শুক্রবার (১০ মে) সন্ধ্যায় তিহার জেল থেকে বেরোনোর সময় আম আদমি পার্টির প্রধানকে ১ হাজারের বেশি উচ্ছ্বসিত সমর্থক স্বাগত জানিয়েছে। সমবেত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এ দেশকে একনায়কতন্ত্রের হাত থেকে বাঁচাতে হবে। আমি আমার সর্বশক্তি দিয়ে এর বিরুদ্ধে লড়াই করছি।’

শনিবার তিনি দিল্লির কনট প্লেসের হনুমান মন্দিরে যাবেন। বিকালে দিল্লিতে আম আদমি পার্টির দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করার কথা তার।

১৩ মে চতুর্থ দফার ভোট হওয়ার কথা থাকলেও দেশব্যাপী নির্বাচনী প্রচারে কেজরিওয়ালকে তুলে ধরবে দলটি। ২৫ মে নয়াদিল্লির সাতটি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ হবে।

কেজরিওয়ালের মুক্তির খবর ছড়িয়ে পড়তেই ভারতীয় ব্লকের দলগুলোতে উল্লাসের ঢেউ বয়ে যায়। এএপি এ ঘটনাকে ‘সত্যের জয়’ বলে অভিহিত করে।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তার মুক্তিকে ছোট করে দেখার চেষ্টা করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘এটা কোনো নিয়মিত জামিন নয়। এটা অন্তর্বর্তীকালীন জামিন। উনি প্রচার করতে পারেন। কিন্তু যতবার তিনি প্রচারে যাবেন, ততবারই মানুষের মনে পড়বে তার আবগারি কেলেঙ্কারির কথা।’